বাংলাদেশ স্কাউটস গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৭ নভেম্বর ২০১৮

গার্ল ইন স্কাউটিং বিভাগ

গার্ল ইন স্কাউটিং বিভাগ

গার্ল ইন স্কাউটিং বিভাগ, বাংলাদেশ স্কাউটস

স্কাউট আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা লর্ড ব্যাডেন পাওয়েল ১৯০৭ সালে লন্ডনের ব্রাউনসী দ্বীপে পরীক্ষামূলক ভাবে স্কাউটিংয়ের শুভ সূচনা করেন যা জাতি, ধর্ম, বর্র্ন নির্বিশেষে সকলের জন্য উন্মুক্ত এবং বর্তমানে যা বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত ও সমাদৃত।

অবিভক্ত ভারত থেকে বাংলাদেশ স্কাউটিং

অবিভক্ত ভারতে ১৯২০ সালে স্কাউট আন্দোলন প্রবর্তিত হয়। স্বাধীনতা-পূর্ব বাংলাদেশে ইষ্টপাকিস্তান বয়স্কাউট এসোসিয়েশন নামে স্কাউটিং চালু ছিল। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইন ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ১১ই সেপ্টেম্বর, ১৯৭২ সালের প্রেসিডেন্ট অর্ডার নং- ১১১ এর ক্ষমতাবলে বাংলাদেশ বয় স্কাউট সমিতি গঠিত হয়। অতঃপর জাতীয় স্কাউট সংস্থায় বালক-বালিকা উভয়ের যোগদানের সুবির্ধার্থে  বয়” শব্দটি বাদ দিয়ে ১৯৭৮ সালের ৩০শে ডিসেম্বর প্রকাশিত গেজেট নোটিফিকেশন অনুযায়ী “বাংলাদেশ বয়স্কাউট সমিতি”র পরিবর্তে সংস্থার নামকরণ-“বাংলাদেশ স্কাউটস” করা হয়। স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে বাংলাদেশ স্কাউটস এর স্বেচ্ছাসেবী ও প্রফেশনাল স্কাউট এক্সিকিউটিভগণ দেশের সকল জেলা ও থানা স্কাউটস এর সাংগঠনিক অবকাঠামোর আওতায় দেশের প্রত্যন্ত এলাকার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্কাউটিং প্রবর্তনের কাজে নিয়োজিত আছেন।

গার্ল গাইড এবং গার্ল ইন স্কাউটিং বিশ্ব প্রেক্ষিত ও বাংলাদেশ

মেয়েদের চাহিদার কথা বিবেচনা করে ব্যাডেন পাওয়েল ১৯১০ সালে গার্ল গাইড প্রবর্তন করলেও সময়ের পরিক্রমায় স্কাউটিংয়ের গতিশীল প্রোগ্রাম ও ট্রেনিংয়ে মেয়েদের অন্তর্ভুক্তি একটি বিশেষ দাবীতে রূপ নেয়। এরই প্রেক্ষিতে ১৯৯০ সালে প্যারিসে অনুষ্ঠিত ৩২ তম ওয়ার্ল্ড স্কাউট কনফারেন্সে এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বাংলাদেশে ১৯৯৪ সালের ২৪ মার্চ অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ স্কাউটস এর জাতীয় কাউন্সিলের ২১তম সভায় বাংলাদেশ স্কাউটসের গঠন ও নিয়ম এর সংশোধনীর অনুমো